CareUEyes 2.0.0.4 Portable । কেয়ারইউআইস ২.০.০.৪ পোর্টেবল

কেয়ার ইউ আইস পোর্টেবল একটি ছোট সফটওয়্যার। সাইজ ছোট হলেও এর কাজ এক কথায় অনবদ্ধ। যেসকল মানুষ অধিকাংশ সময় কম্পিউটারের সামনে বসে কাটান, তাদের কথা চিন্তা করেই এই সফটওয়্যারটি বানানো হয়েছে।

কেয়ারইউআইস এর দুটি প্রধান এবং গুরুত্বপূর্ণ ফিচার হচ্ছে ব্লু-লাইট ফিল্টার এবং কিছুক্ষন পর-পর বিরতির জন্য মনে করিয়ে দেয়া। এ দুটির সমন্বয় অতিরিক্ত কম্পিউটার ব্যবহারে সৃষ্ট চোখের স্টেইন কমিয়ে চোখকে আরাম দেয়। বিনা বিরতিতে দীর্ঘক্ষন কম্পিউটার ব্যবহার করা ঠিক নয়, এক্ষেত্রে কেয়ারইউআইস গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করতে পারে।

এ সফটওয়্যারের নীল আলোর(Blue-Light) ফিল্টার এবং স্ক্রিন ডিমার অনেক ভালো কাজ করে। এটি সক্রিয় ভাবে সময়ের সাথে সাথে পরিবর্তিত হতে পারে। এটা সাধারণত ডিসপ্লের গামা রশ্মির মান পরিবর্তনের মাধ্যমে হয়ে থাকে। এছাড়া এর নীল আলোর অংশ কাজ করে আরজিবি(RGB) স্পেক্ট্রাম পরিবর্তনের মাধ্যমে। এটা দিনের সময়ও আলো কমিয়ে রাতের অবস্থা সৃষ্টি করতে পারে। ফলে ডিসপ্লের চকচকে ভাবটা দূর হয়ে যায় এবং চোখকে অধিক সময় কাজ করতে সাহায্য করে।

এর টাইম টোকেনের সাহায্যে এটি প্রতি ৪৫ মিনিট পর পর ৩ মিনিট বিরতিতে যেতে সাহায্য করে। এসময় স্ক্রিন লক করার ৩০ সেকেন্ড পূর্বে ব্যবহারকারীকে সংকেত প্রদান করে। ব্যবহারকারী চাইলে কাজের ধারাবহিকতা বজায় রাখতে ৫ মিনিট করে ৩ বার স্নুজড(snoozed) করে রাখতে পারে।

চিন্তার কিছু নেই এর আছে অ্যরে অপশন। যার মাধ্যমে ব্যবহারকারী চাইলে কাজের সময় নির্ধারণ এবং বিরতির সময় নির্দিষ্ট করতে পরে। যেমন: কখন বিরতি নেবে কিংবা কত সময় ধরে বিরতি নেবে। তাছাড়া, ঔ একই অপশন ব্যবহার করে নীল আলোর প্রকৃতি পরিবর্তন করতে পারেন। এক্ষেত্রে পাঁচটি অলাদা পূর্ব নির্ধারিত অপশন পাবেন। এর মাধ্যমে আবহাওয়া অনুযায়ী কালার টেম্পারেচার(তাপমাত্রা) নির্ধারণ করা যায়। আবার কাস্টম অপশন ব্যবহার করে প্রয়োজনমত আলোও ব্যবহার করা যায়।

   ফিচারসমূহ:

  • চকচকে পর্দা থেকে চোখকে রক্ষা করে।
  • নীল আলো নিয়ন্ত্রন করে।
  • বিরতির সময় নির্ধারন এবং লক স্ক্রিনের মাধ্যমে নিশ্চিত করনে সহায়তা করে।
  • ব্যবহারকারীকে কর্মদক্ষ করে তোলে এবং স্বাস্থ্য সচেতনতায় ভূমিকা রাখে।

অন্যান্য তথ্য:

  • সাল:২০২০
  • সংস্করণ:২.০.০.৪
  • সিস্টেম:উইন্ডোজ এক্সপি/ ভিস্তা/৭/৮/৮.১/১০
  • ধরন:রার
  • আকার:১২ এমবি
  • পাসওয়ার্ড: portablesoftwarebd.com

 Inkscape 1.0.1 Portable । ইন্কস্কেপ ১.০.১ পোর্টেবল

ইন্কস্কেপ পোর্টেবল একটি ফ্রি এবং ওপেনসোর্স প্রোগ্রাম। এটি একটি ভেক্টর গ্রাফিক্স এডিটর। এটি স্কেলেবল ভেক্টর গ্রাফিক্স (এসভিজি) নিয়ে কাজ করে। তবে অন্যান্য ফর্মেট ইমপোর্ট এবং কাজ শেষে এক্সপোর্ট করা যায়। ইন্কস্কেপ আদিম ভেক্টর আকারগুলি (যেমন আয়তক্ষেত্র, উপবৃত্তাকার, বহুভুজ, আরকস, সর্পিলস, তারা এবং ৩ ডি বাক্স) এবং পাঠ্য রেন্ডার করতে পারে। এই বস্তুগুলি শক্ত রঙ, নিদর্শন, রেডিয়াল বা লিনিয়ার, কালার গ্রেডিয়েন্টে পূর্ণ হতে পারে এবং তাদের সীমানা স্ট্রোক করা যেতে পারে।  রাস্টার গ্রাফিক্সের এম্বেডিং (যেমন জেপিইজি, পিএনজি, টিআইএফএফ এবং অন্যান্য) এবং ইচ্ছে মত ট্রেসিং করা যায়। আকারগুলি মুভিং, আবর্তন, স্কেলিং এবং স্কিউংয়ের মতো পরিবর্তন আনয়ন করা যায় ইন্কস্কেপ পোর্টেবলের মাধ্যমে।

ফিচারসমূহ:

  • ক্রিয়েটিভ কমন্স মেটাডেটা সমর্থন করে।
  • আলফা চ্যানেল, রূপান্তরকরণ, গ্রেডিয়েন্টস, টেক্সচার এবং গোষ্ঠীকরণের মতো এসভিজি ফাংশনগুলির ব্যবহার করা যায়।
  • আকার, পথ, পাঠ্য, চিহ্নিতকারী ইত্যাদি নিয়ে কাজ করে।
  • নোডগুলি সম্পাদন করতে পারে।
  • পার্ল, পাইথন এবং রুবিতে লিখিত স্ক্রিপ্টগুলি ব্যবহার করতে সক্ষম।
  • লেয়ার নিয়ে কাজ করে।
  • রূপরেখা সহ জটিল কাজগুলো করার সক্ষমতা রয়েছে।
  • রাস্টার গ্রাফিক্সকে ভেক্টরে রূপান্তর করতে পারে।
  • এক্সএমএল ডেটা সরাসরি সম্পাদন করতে পারে।
  • জেপিজি, পিএনজি, টিআইএফএফ ইত্যাদিতে ফাইল আমদানি অর্থাত ইমপোর্ট করতে পারে।
  • পক্ষান্তরে কিছু ভেক্টর ফর্মেটের পাশা-পাশি পিএনজি ফর্ম্যাটে ফাইলগুলিকে রফতানি বা এক্সপোর্ট করতে পারে।
  • নিজস্ব রেন্ডার এঞ্জিন আছে।
  • হটকি সমর্থন করে।

এছাড়া একে এডোভ ইলাস্ট্রেটরের সেরা বিকল্প হিসেবে ধরা হয়ে থাকে। এটি ভেক্টর গ্রাফিক্সের জন্য সেরা ফ্রি সফটওয়্যার।

কিছু তথ্য:

  • প্রাথমিক প্রকাশ: ২রা নভেম্বর ২০০৩
  • সি+ +, জিটিকিএমএম, পাইথন (এক্সটেনশনগুলি) দিয়ে লেখা হয়েছে
  • প্রোগ্রাম টাইপ: ভেক্টর গ্রাফিক্স সম্পাদক
  • লাইসেন্স: জিপিএলভি ৩+
  • ওয়েবসাইট: inkscape.org

অন্যান্য তথ্য:

  • সাল: ২০২০
  • সংস্করণ: ১.০.১
  • সিস্টেম: উইন্ডোজ এক্সপি / ভিস্তা /৭ /৮ /৮.১ /১০
  • ধরন: রার
  • আকার: ১১৮ এমবি
  • পাসওয়ার্ড: portablesoftwarebd.com

Maxthon Cloud 4.9.5.1000 Portable । ম্যাক্সথোন ক্লাউড ৪.৯.৫.১০০০ পোর্টেবল

ম্যাক্সথোন একটি ক্রসপ্লাটফর্ম ওয়েব ব্রাউজার। এটি একটি অসাধারণ ব্রাউজার। যা সাধারণ ব্রাউজার থেকে একটু আলাদা। আলাদা বলছি এজন্য যে, এর অসাধারণ ফিচারগুলো অন্য ব্রাউজারে দেখা যায়না বললেই চলে।

প্রতিযোগীতায় টিকে থাকার জন্য তারা নিয়ে আসে/আসছে নতুন নতুন সব সংযোজন। এর ওয়েবকিট রেন্ডারিং (ক্রোম এবং সাফারি তে ব্যবহৃত)  আপনাকে দেবে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স, তবে প্রোগ্রামটি ইন্টারনে এক্সপ্লোরারের ট্রাইডেন্ট ইঞ্জিনের সাথে সামঞ্জস্যের সাথে রেন্ডার করতে পারে। এছাড়া, মজিলা, ওপেরা কিংবা ক্রোম থেকে বুকমার্ক এবং হিস্টোরি নিয়ে কাজ করা যায়।

ফিচারসমূহ:

  • ম্যক্সথোন ক্লাউড ব্যবহার করে আপনি আপনার অডিও, ভিডিও, ইমেজ অথবা কম্পেস ফাইল অনলাইনে সংরক্ষন করতে পারেন। এটি আপনার ডাটা সিন্স করে রাখে। তাই আপনি যখন খুশি, যেখানে খুশি আপনার ফাইলসমূহ ব্যবহার করতে পারেন।
  • ব্রাউজারের বিল্ট-ইন মাউস গেসচার / অঙ্গভঙ্গি ব্যবহার করে স্ক্রল করাসহ অন্যান্য কাজ অনেক দ্রুততার সাথে করতে পারেন। উদাহরণস্বরূপ বলা যায়, মাউসের ডান বোতামটি ধরে রেখে কার্সারটি ডান থেকে বামে সরিয়ে নিলে পূর্বের পৃষ্ঠায় ফিরে যাওয়া যায়। এছাড়া ব্যবহারকারী চাইলে নতুন গেসচার যোগ করার সুবিধা তো থাকছেই।
  • এর অন্যান্য ফিচারগুলির একটি হলো পার্সওয়ার্ড সংরক্ষন। এ ফিচারের দ্বারায় ব্যবহারকারী তার ব্যবহৃত কোনো ওয়েব সাইটের নেম এবং পার্সওয়ার্ড পরবর্তী ব্যবহারের জন্য সংরক্ষন করতে পারে।
  • উক্ত ব্রাউজারটি সক্রিয়ভাবে এড অথবা পপ আপ ব্লক/বন্ধ করতে পারে। তাই, ব্যবহারকারী দেখতে পারেন দৃষ্টিনন্দন আবহ কোনো প্রকার ঝামেলা ছাড়াই।
  • এর স্নিফার ফন্ট বিভিন্ন ধরনের ওয়েব কন্টেন্ট (যেমন: অডিও, ভিডিও, ইমেজ) ডাউনলোড করতে সহায়তা করে। তাছাড়া, এর স্ন্যাপ ফিচারটি ব্যবহার করে ব্যবহারকারী তার প্রয়োজনমত কোনো ওয়েব পেইজের স্থির চিত্র সংরক্ষন করতে পারে।
  • ভি.৫ সংস্করনে ব্রাউজারটি পরিচয় করিয়েছে ইউইউমেইল নামক ফিচারের। ব্যবহারকারীর ইমেল আইডি/ঠিকানাকে সুরক্ষিত রাখতে সীমাহীন ভার্চুয়াল ইমেল আইডি তৈরি করে এ ফিচারের আওতায়। এছাড়া, ইনবক্সকে পরিষ্কার ও পরিপাটি রাখতে স্প্যামগুলিকে আলাদা করে।

*এড-অন্স ব্যবহার করে আপনি চাইলে আরোও ফিচার যোগ করতে পারেন। তবে প্রাইবেসি বলতে একটা কথা আছে। সুতরাং নিজ দ্বায়ীত্বে ব্যবহার করুন।

কিছু তথ্য:

  • প্রাথমিক প্রকাশ: ২০০২
  • বিকাশকারী: ম্যাক্সথন ইন্টারন্যাশনাল
  • ইঞ্জিন: ওয়েবকিট
  • প্রোগ্রামিং ভাষা: সি ++
  • লাইসেন্স: মালিকানাধীন সফ্টওয়্যার, ফ্রিওয়্যার

অন্যান্য তথ্য:

  • সাল:২০২০
  • সংস্করণ: ৪.৯.৫.১০০০
  • সিস্টেম: উইন্ডোজ এক্সপি / ভিস্তা /৭ /৮ /৮.১ /১০
  • ধরন: রার
  • আকার: ৫২ এমবি
  • পাসওয়ার্ড: portablesoftwarebd.com

 

Pot Player 1.7.21295 Portable । পট প্লেয়ার ১.৭.২১২৯৫ পোর্টেবল

পট প্লেয়ার একটি মাল্টিমিডিয়া প্লেয়ার। এটি একটি পাওয়ারফুল মিডিয়া প্লেয়ার, যা কম রিসোর্স দখল করে হাই কোয়ালিটি অডিও এবং ভিডিও প্লে করতে পারে। এর গুনের কথাকি বলে শেষ করা যাবে? চলুন এক নজরে দেখে নেয়া যাক এর ফিচারসমূহকে।

ফিচারসমূহ:

  •  সমস্ত সাধারণ অডিও এবং ভিডিও ফর্ম্যাট সমর্থন করে। যেমনঃ এভিআই, ডাব্লিউএমভি, ডাব্লিউএমপি, ডাব্লিউএম, এএসএফ, এমপিজি, এমপিইজি, এমপিই, এম১ভি, এম২ভি, এমপিভি২, এমপি২ভি, ডেট, টিএস, টিপি, টিপিআর, টিআপপি, ভব, আইএফও, ওজিএম, ওজিভি, এমপি৪, এম৪পি, এম৪বি, ৩জিপি, ৩জিপিপি, ৩জি২, ৩জিপি২, এমকেভি, আরএম, আরএমভিবি, আরপিএম, এফএলভি, এসডাব্লিওএফ, মোভ, কিউটি, এএমআর, এনএসভি, ডিপিজি, এম২টিএস, এম২টি, এমটিএস, ডিভিআর-এমএস, কে৩জি, এসকেএম, ইভও, এনএসআর, এএমআর, ডিভএক্স, ওয়েবএম, ডব্লিওটিভি, এফ৪ভি,এমপি২,৩
  • ৩ডি মুভিকে বিভিন্ন ভাবে দেখাতে সক্ষম আপনার প্রয়োজন অনুসারে।
  • আপনি যদি আপনার পিসিতে ডিভিডি চালাতে চান, পট প্লেয়ার ব্যবহার করতে পারেন। কারনঃ পট প্লেয়ার ভিডিওকে সবচেয়ে ভালো কোয়ালিটিতে চালাতে পারে।
  • আইপি টিভি চালাতে চান? কিন্তু কিভাবে চালাবেন বুজতে পারছেন না? পট প্লেয়ার ব্যবহার করে দেখতে পারেন। পট প্লেয়ার ব্যবহার করে আপনি কোনে প্লে লিস্ট থেকে আইটি টিভি চালাতে পারেন। এছাড়াও কোনো এফটিপি থেকে অডিও কিংবা ভিডিও লিংক কপি করে পট প্লেয়ারে পেস্ট করুন। আর দেখতে থাকুন আপনার পছন্দের মিডিয়া ফাইল পট প্লেয়ারে।
  • বিদেশী ছবি দেখছেন কিন্তু এর ভাষা অজানা। চিন্তার কোনো কারন নেই আপনি চাইলে সাবটাইটেল যোগ করে ছবির মজা নিতে পারেন। সাবটাইটেল সিকè না হলেও সমস্যা নেই, এর স্পিড কমিয়ে বা বাড়িয়ে সিকè করে নিতে পারবেন।
  • এসপিডিআইএফ, ৩ডি সাউন্ড এবং ডলবে (Dolby) সাউন্ড সাপোর্ট করে। তাই, মজা নিন হাই কোয়ালিটি মিউজিকের।
  • এই প্লেয়ার ব্যবহার করে আপনি চাইলে স্টিল ছবি নিতে পারবেন। তাছাড়া ভিডিও রেকর্ডও করতে পারবেন।
  • উক্ত প্লেয়ারের আছে সাধারনের মাঝেও অসাধারন ইন্টারফেস। আপনি চাইলে ইউটিউব থিমসহ অন্যান্য থিম ব্যবহার করে এর লুক পরিবর্তন করতে পারবেন।
  • এর কন্ট্রোল একটু জটিল মনে হতে পারে। আমি ব্যক্তিগতভাবে পট প্লেয়ারকে আপপিটিভি ওপেনার হিসেবে ব্যবহার করি। আপনারাও এর ফিচারগুলো অনুভব করতে পারেন।

কিছু তথ্যঃ

  • মূল মালিক: কং ইয়ং – হুই
  • ডেভেলাপমেন্ট কোম্পানী: কাকাও (ডাউম নামেও পরিচিত)

অন্যান্য তথ্য:

  • সাল: ২০২০
  • সংস্করণ: ১.৭.২১২৯৫
  • সিস্টেম: উইনডোজ এক্সপি / ভিস্তা / ৭ / ৮ / ৮.১ / ১০
  • ফাইলের ধরণ: রার
  • ফাইলের আকার: ৩৭ এমবি
  • ফাইলের পাসওয়ার্ড: portablesoftwarebd.com

IDM 6.38 Portable। ইন্টারনেট ডাউনলোড ম্যানাজার বা আইডিএম ৬.৩৮ পোর্টেবল

ন্টারনেট ডাউনলোড ম্যানাজার বা আইডিএম এর সাথে আমরা কম-বেশ সবাই পরিচিত। এটা একটা শেয়ারওয়ার যা আমেরিকার নিউ ইয়র্ক শহরে অবস্থিত টন্ছ (Tonec Inc.) ইনকরপোরেশন নামক প্রতিষ্ঠান বাজারযাত করে থাকে। এই সফটওয়্যারটি কেবলমাত্র উইনডোজ অপারেটিং এ ব্যবহার করা যায়। ইন্টারনেট থেকে কোনো ফাইল ডাউনলোড করার জন্য আইডিএম ব্যবহার করা হয়। এটি ব্যবহার করা খুব সহজ। এর ইন্টারফেস খুব সহজেই পরিবর্তন করা যায়। এটি আপনার সম্পূর্ন ব্যান্ডউইথ ব্যবহার করে, তাই কোনো ফাইল ডাউনলোড করার জন্য কম সময়ের প্রয়োজন হয়।

ফিচারসমূহ:

  • ডাউনলোড করতে এটি ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার, অপেরা, গুগল ক্রোম, মাইক্রোসফ্ট এজ, নেটস্কেপ নেভিগেটর, অ্যাপল সাফারি, ফ্লক, ফায়ারফক্স, অ্যাভেন্ট ব্রাউজার, এওএল, এমএসএন এক্সপ্লোরার, মাইআইই ২ এবং অন্যান্য জনপ্রিয় ব্রাউজারগুলির সাথে দক্ষতার সাথে কাজ করে।
  • মাইক্রোসফ্ট আইএসএ, এফটিপি, এইচটিপি এবং এইচটিটিপিএস প্রোটোকল – এর মতো বিস্তৃত প্রক্সি সার্ভারগুলি সমর্থন করে।
  • ডিরেক্টরিগুলিতে সহজে অ্যাক্সেসের জন্য সাম্প্রতিক ডাউনলোডগুলির তালিকা ব্যবহার করা যায়।
  • দ্রুত ডাউনলোডের জন্য ডাউনলোডগুলি একাধিক স্ট্রিমে বিভক্ত করে। ফলে ব্যান্ডউইথের পরিপূর্ন ব্যবহার নিশ্চিত হয়।
  • ব্যাচ ডাউনলোড সাপোর্ট করে তাই এ একই ফোল্ডারের সমস্থ ফাইল ডাউনলোড করা যায় কয়েক ক্লিকেই।
  • ব্যবহারকারীর নাম এবং পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে ডাউনলোডের অনুমতি প্রদানের ব্যবস্থা।
  • পস, রিজিউম সাপোর্ট করে। ফলে যখন খুশি ফাইল ডাউনলোড করা যায়।
  • একটি অন্তর্নির্মিত ইউটিউব গ্রাবার আপনাকে ইউটিউব, গুগল ভিডিও এবং অন্যান্য ভিডিও শেয়ারিং সাইট থেকে ভিডিও ডাউনলোড করতে সহায়তা করে।
  • এর সাইট স্পাইডার আপনাকে কোনো নির্দিষ্ট ওয়েব পেইজ থেকে সমস্ত ছবি বা অফলাইন ব্রাউজিংয়ের জন্য ডাউনলোড করতে পারে। এ ফিচারটি ব্যবহার করে আপনি চাইলে একটি সম্পূর্ণ ওয়েব সাইট ডাউনলোড করতে পারবেন।
  • এর ইন্টিগ্রেটেড শিডিয়ুলার আপনাকে আপনার পছন্দের সময়ে ডাউনলোডগুলি স্বয়ংক্রিয়ভাবে চালু করতে দেয়।
  • আইডিএম ব্যবহার করে আপনি যদি চান কোনো ফাইল ডাউনলোড শেষে আপনার কম্পিউটারটি বন্ধ হয়ে যাক, ফাইল এর ট্যাব বাটন ক্লিক করে আপনি এটি করতে পারেন।
  • এটি ব্যবহার করে আপনি আপনার ডাউনলোড স্পিড কন্ট্রল করতে পারবেন। যেমন কোনো একটি ফাইলকে তাড়া-তাড়ি ডাউনলোড করতে চান। এক্ষেত্রে অন্য ফাইলগুলির স্পিড কমিয়ে দিন।

অন্যান্য তথ্য:

  • সাল:২০২০
  • সংস্করণ: ৬.৩৮
  • সিস্টেম: উইন্ডোজ এক্সপি / ভিস্তা /৭ /৮ /৮.১ /১০
  • ধরন: রার
  • আকার: ১২ এমবি
  • পাসওয়ার্ড: portablesoftwarebd.com

GIMP 2.10.20-1 Portable । জিআইএমপি বা গিম্প ২.১০.২০-১ পোর্টেবল

জিআইএমপি বা গিম্প পোর্টেবল হ’ল একটি শক্তিশালী, বহুমুখী এবং সর্বাধিক ব্যবহৃত ফ্রি গ্রাফিক্স এডিটর বা সম্পাদক, যা ফটোশপের চেয়ে কোনো অংশেই কম নয়। এটি চিত্র অঙ্কন, ওয়েব ডিজাইন এবং গ্রাফিক ডিজাইনের জন্য এক অনবদ্য সফটওয়্যার। এর মাধ্যমে স্পেশাল এফেক্ট, টুলস ছাড়াও ফটোশপের মতো একশনসমূহ ব্যবহার করা যায়। রাস্টার গ্রাফিক্সের কাজ করার জন্য গিম্প পোর্টেবল একটি দুর্দান্ত সফটওয়্যার। এর মাধ্যমে কাজ করা সহজ ও এর পাশাপাশি এক্সটেনসিবিলিটি এবং অন্যান্য সুবিধা রয়েছে। আপনি একে এক্সপ্রেস মোড, কাস্টম মোড এবং অ্যাডভান্সড মোডে ব্যবহার করতে পারবেন।

গিম্প – কে যেমন অনেক সহজ কাজে ব্যবহার করা যায়, তেমনি অনেক জটিল কাজেও এর ব্যবহার লক্ষ করা যায়। এর স্বাভাবিক ইন্টারফেস খুব সাধারণ, যা মোটামুটি সব কাজেই ব্যবহার করা যায়। তবে আপনি চাইলে এর ইন্টারফেসের কিছু পরিবর্তন ঘটিয়ে জটিল কাজে ব্যবহার করতে পারেন। এতে আপনি গ্রেডিয়েন্ট এবং কাস্টম গ্রেডিয়েন্টও প্রয়োগ করতে পারেন। এটা সবার জন্য উন্মুক্ত। নবিস থেকে শুরু করে প্রো পর্যন্ত সবাই এর মাধ্যমে কাজ করতে পারে। এতে বিভিন্ন রকমের অসংখ্য প্লাগিন ব্যবহার করা যায়। তাছাড়া একে এডোব ফটোশপের সেরা বিকল্প মানা হয়। এর টুল এবং অন্যান্য ইন্টারফেসের পরিচয় কিছুটা সময় সাপেক্ষ হতে পারে। এর সাথে শুরুটা একটু ধীর হলেও এতে অভ্যস্থ হওয়াটা সময়ের ব্যাপার মাত্র।

ফিচারসমূহ:

  • এটি একটি ফ্রি সফটওয়্যার। তাই টাকা খরচের প্রয়োজন নেই।
  • ছবি আঁকা থেকে শুরু করে পুরোনো ছবির পূর্নণির্মান কি করা যায় না এর মাধ্যমে?
  • এটি পিএসডি এবং এবিআর সহ বৃহত সংখ্যক গ্রাফিক ফর্ম্যাটকে সমর্থন করে। এছাড়া এর মাধ্যমে মাস্ক, ফিল্টার এবং ব্লেন্ডিং মোড নিয়ে কাজ করা যায়।
  • ব্রাশের গতিশীলতা ছাড়া এতে রয়েছে ইন্টারফেস পরিবর্তনের সুযোগ।
  • লেয়ারের আসল সাইজ দেখায় এবং চিত্রকে ক্যানভাসের একস্হান থেকে অন্য স্থানে সরানোর সুবিধা দেয়।
  • অসংখ্য প্লাগইন, এক্সটেনশান, ব্রাশ এবং গ্রেডিয়েন্ট সহ এর লাইব্রেরিকে প্রসারিত করা যায়। উপরন্তু ফটোশপ ব্রাশগুলির সাথে কাজ করা যায়।
  • গ্রাফিক্স ট্যাবলেট এবং অন্যান্য ইনপুট ডিভাইস এর সাথে কাজ করে।
  • হটকি সমর্থন করে।

অন্যান্য তথ্য:

  • সাল:২০২০
  • সংস্করণ: ২.১০.২০-১
  • সিস্টেম: উইন্ডোজ এক্সপি / ভিস্তা /৭ /৮ /৮.১ /১০
  • ধরন: রার
  • আকার: ২৫৯ এমবি
  • পাসওয়ার্ড: portablesoftwarebd.com

 

OBS Studio 26.0 Portable । ওবিএস বা ওপেন ব্রডকাস্টার সফটওয়্যার ২৬.০ পোর্টেবল

ওবিএস বা ওপেন ব্রডকাস্টার সফটওয়্যার একটি ফ্রি এবং ওপেনসোর্স প্রোগ্রাম। এটি ভিডিও রেকর্ড এবং সম্প্রচার করতে ব্যবহৃত হয়। শুরুতে ওবিএস প্রজেক্ট বাজারে এলেও ২০১৬ সাল থেকে একে ওবিএস স্টুডিও হিসেবে পরিচিতি লাভ করে। ওবিএস স্টুডিও উইনডোস, লিনাক্স কিংবা ম্যাক সংস্করণও প্রকাশ করা হয়েছে। এর দ্বারা মিডিয়া ফাইল, গেমস, ওয়েব পেইজ (পৃষ্ঠা), অ্যাপ্লিকেশন উইন্ডো, ওয়েবক্যামস, ডেস্কটপ, মাইক্রোফোন সহ একাধিক উৎস থেকে সম্প্রচার (ব্রডকাস্ট) করা যায়।

ফিচারসমূহ:

  • একাধিক উৎস থেকে এক সাথে সম্প্রচার করার সুবিধা। উদাহরণস্বরূপ, আপনি একটি ওয়েব বিকাশ সরঞ্জাম (ডেভেলাপমেন্ট টুল)। আপনি যে সাইটের আপডেট করছেন তার লাইভ পূর্বরূপ (প্রিভিও) সহ একটি ব্রাউজার উইন্ডো এবং দর্শকদের আপনি কী দেখাতে চান তা জানানোর জন্য একটি মাইক্রোফোন অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন।
  • এর রেকর্ড অপশন ব্যবহার করে আপনার পছন্দের এনকোডার এবং অন্যান্য সেটিংস সহ শো / ডেমো / গেম / প্রেজেন্টেশন (উপস্হাপনা) কে এফএলভি / এমপি৪ / এমওভি / টিএস / এম৩ইউ৮ হিসেবে সংরক্ষন করতে পারেন।
  • আপনি চাইলে ওবিএস স্টুডিও ব্যবহার করে টুইচ, ইউটিউব, হিটবক্স, ডেইলি মোশন, বিম, লাইভকডিং, ফেসবুক লাইভ বা রেস্ট্রিম – এ সরাসরি সম্প্রচার করতে পারেন।
  • এর ব্যবহার খুব একটা সাধারণ না হলেও অল্প সময়ের মধ্যেই এর ব্যসিক ধারণা পাওয়া যায়। একটি উৎস যোগ করে, প্রয়োজন মত সেটিংস পরিবর্তন করুন। রেকর্ডিং শুরু করুন এবং ভিডিও ফলাফল দেখুন।
  • ওবিএস স্টুডিও ব্যবহার করে আপনি আপনার সম্প্রচারকৃত মিডিয়া ফাইলটির গুনগত মানের পরিবর্তন করতে পারেন। (যেমন: বিটরেট , রেজোলিউশন, ফ্রেম রেট – এর পরিবর্তন)
  • এর আছে উচ্চ কার্যকারিতা সম্পন্ন রিয়েল টাইম ভিডিও / অডিও ক্যাপচারিং এবং মিশ্রণ করার ক্ষমতা। যা ওবিএস স্টুডিওকে এনে দিয়েছে বিপুল জনপ্রিয়তা।
  • এর মডিউলার ‘ডক’ ইউআই আপনাকে আপনার পছন্দ মতো লে – আউট সাজাতে সাহায্যে করে। এমনকি প্রতিটি পৃথক ডককে একটি উইন্ডোতে পপ আউট করাতে পারেন।
  • প্রেগ্রামটি ৩২ বিট ও ৬৪ বিট সমর্থন করে।

অন্যান্য তথ্য:

  • মূল প্রকাশক: হিউ “জিম” বেইলি
  • প্রোগ্রামটি সি, সি ++ এ লিখিত
  • প্রাথমিক প্রকাশ ভি০.৩২এ / ১ সেপ্টেম্বর ২০১২
  • ওয়েবসাইট: https: www.obsproject.com
  • সাল:২০২০
  • সংস্করণ: ২৬.০
  • সিস্টেম: উইন্ডোজ এক্সপি / ভিস্তা /৭ /৮ /৮.১ /১০
  • ধরন: জিপ
  • আকার: ১৮৬ এমবি
  • পাসওয়ার্ড: portablesoftwarebd.com

VLC Media Player 3.0.11 Portable । ভিএলসি মিডিয়া প্লেয়ার ৩.০.১১ পোর্টেবল

ভিএলসি মিডিয়া প্লেয়ার পোর্টেবল অডিও এবং ভিডিও ফাইল খেলার/চালানোর জন্য একটি শক্তিশালী প্লেয়ার। ভিএলসি মিডিয়া প্লেয়ার একটি লাইটওয়েট প্লেয়ার, তাই এর সমগুনসম্ভলীত সফটওয়্যারের তুলনায় কম জায়গা দখল করে। ডিভিডি চালানোর জন্য সিস্টেমে সাইবারলিংক পাওয়ারডিভিডি বা কোরেল উইনডিভিডির মতো ভারী সফটওয়্যারের বিকল্প হতে পারে ভিএলসি মিডিয়া প্লেয়ার। যা ঐসব ভারী সফটওয়্যারের থেকে কম জায়গা দখল করে তাদের ৯৯% কাজ করে দিতে পারে। তাছাড়া ভিএলসি মিডিয়া প্লেয়ার মিডিয়া ফাইলকে  বিভিন্ন ফর্ম্যাট-এ রূপান্তর করতে সক্ষম। তাই কার্যত এর দ্বারা এক ঢিলে একাধিক পাখি শিকার করা যায়।

ওয়েবসাইট: videolan.org/vlc

বিকাশকারী: ভিডিওলান

প্রাথমিক প্রকাশ: ১ ফেব্রুয়ারি ২০০১

লিখিত: সি, সি ++, অবজেক্টিভ-সি

ফিচারসমূহ:

  • এমপিইজি (ইএস, পিএস, টিএস, পিভিএ, এমপি 3), এভিআই, এএসএফ / ডাব্লুএমভি / ডাব্লুএমএ, এমপি 4 / এমওভি / 3 জিপি, ওজিজি / ওজিএম / অ্যানোডেক্স, ম্যাট্রোস্কা (এমকেভি), রিয়েল, ডাব্লুএইভি (ডিটিএস সহ), কাঁচা অডিও: ডিটিএস , এএসি, এসি 3 / এ 52, কাঁচা ডিভি, এফএলসি, এফএলভি (ফ্ল্যাশ), এমএক্সএফ, বাদাম, স্ট্যান্ডার্ড এমআইডিআই / এসএমএফ, ক্রিয়েটিভ ভয়েসসহ বিভিন্ন ফর্ম্যাট প্লে করতে পারে।
  • ইউডিপি / আরটিপি ইউনিকাস্ট, ইউডিপি / আরটিপি মাল্টিকাস্ট, এইচটিটিপি / এফটিপি, এমএমএস, টিসিপি / আরটিপি ইউনিকাস্ট, ডিসিসিপি / আরটিপি ইউনিকাস্ট, ফাইল, ডিভিডি ভিডিও, ভিডিও সিডি / ভিসিডি, এসভিসিডি, অডিও সিডি (ডিটিএস-সিডি নেই), ডিভিবি (উপগ্রহ) , ডিজিটাল টিভি, কেবল টিভি), এমপিইজি এনকোডারসহ সব ধরণের ডিভিডি, ভিসিডি প্লে করতে পারে।
  • একই ধরণের সফ্টওয়্যারগুলির চেয়ে কম র‌্যাম ব্যবহার করে।
  • এর খুব সাধারণ এবং সহজেই ব্যবহারযোগ্য পরিবেশ।
  • স্কিন যোগ করা, ভিএলসি স্কিন এডিটর দিয়ে স্কিন তৈরি করা এবং এক্সটেনশান ইনস্টল করার ব্যবস্থা রয়েছে।
  • ভিএলসির ভিডিও, সাবটাইটেল সিঙ্ক্রোনাইজেশন, ভিডিও এবং অডিও ফিল্টারগুলির মধ্যে সবচেয়ে সম্পূর্ণ বৈশিষ্ট্য-সেট রয়েছে।
  • এটি একটি বিনামূল্যে সফ্টওয়্যার। তাই, এর জন্য কোনো প্রকার অর্থ ব্যয় করতে হয় না।
  • এর ইন্টারফেস বিভিন্ন ভাষা সমর্থন করে।
  • উইন্ডোজ, লিনাক্স, ম্যাকিনটোস এবং বেশিরভাগ অপারেটিং সিস্টেমে চালনার ক্ষমতা ভিএলসি মিডিয়া প্লেয়ার কে এনে দিয়েছে বিপুল জনপ্রিয়তা।
  • বিভিন্ন পছন্দের জন্য একাধিক শেল
  • উইন্ডোজ বিভিন্ন সংস্করণ সমর্থন করে
  • কোনও স্পাইওয়্যার নেই, কোনও বিজ্ঞাপন নেই, কোনও ব্যবহারকারীর ট্র্যাকিং নেই

অন্যান্য তথ্য:

  • সাল:২০২০
  • সংস্করণ: ৩.০.১১
  • সিস্টেম: উইন্ডোজ এক্সপি / ভিস্তা /৭ /৮ /৮.১ /১০
  • ধরন: জিপ
  • আকার: ৬৭ এমবি
  • পাসওয়ার্ড: portablesoftwarebd.com

ডাউনলোড ইনফো:


 

Media Info 20.08 Portable । মিডিয়া ইনফো ২০.০৮ পোর্টেবল

মিডিয়া ইনফো পোর্টেবল একটি ছোট প্রোগ্রাম, যার মাধ্যমে ব্যবহারকারী অডিও এবং ভিডিও ফাইলের সম্পূর্ণ তথ্য অ্যাক্সেস করতে পারে। এর মাধ্যমে ব্যবহারকারী অডিও/ভিডিও ফাইল এর নাম, ধরন, আকার, তৈরী এবং সম্পাদনের তারিখসহ আরোও নানা তথ্য দেখতে পারে।মিডিয়াইনফো ব্যবহারের মাধ্যমে তথ্য সমূহকে টেক্সট,এইচটিএমএল, এক্সএমএলসহ অন্যান্য ফর্মেটে প্রদর্শন করা যায়।

ফিচারসমূহ:

  • কোন প্রকার পূর্ব অভিজ্ঞতা ছাড়াই ব্যবহার করা যায়
  • সুন্দর গ্রাফিকাল ইউজার ইন্টারফেস
  • তথ্য ব্যক্তিগতকরনের সুবিধা
  • টেক্সট/পাঠ্য এবং ওয়েব ফর্ম্যাটে তথ্য সংরক্ষণের ক্ষমতা
  • সকল জনপ্রিয় ফরমেট সাপোর্ট/সমর্থন করে (যেমন ম্যাট্রোস্কা, ওয়েবএম, এভিআই, ডাব্লুএমভি, কুইকটাইম, রিয়েল, ডিভএক্স, এক্সভিডি)

 

অন্যান্য তথ্য:

  • সাল:২০২০
  • সংস্করণ: ২০.০৮
  • সিস্টেম: উইন্ডোজ এক্সপি / ভিস্তা /৭ /৮ /৮.১ /১০
  • ধরন: জিপ
  • আকার: ৬ এমবি
  • পাসওয়ার্ড: portablesoftwarebd.com

Dia 0.97.2 Portable । ডায়া ০.৯৭.২ পোর্টেবল

ডায়া একটি ফ্রি সফটওয়্যার। এটি মূলত একটি ড্রয়িং সফটওয়্যার। এর মাধ্যমে সহজেই বিভিন্ন ডায়াগ্রাম আঁকা যায়। ডায়া ব্যবহার করে ইলেকট্রনিক বর্তনী সম্বলীত ডায়াগ্রাম/চিত্র তৈরী করা যায়। এটি মাক্রোসফট ভিসিও এ অল্টারনেটিভ/বিকল্প হিসেবে কাজ করে। ৩১ আগস্ট ১৯৯৮ সালে আজ থেকে ২২ বছর আগে এই সফটওয়্যারটি যাত্রা শুরু করে।

ফিচারসমূহ:

  • ফ্লোচার্ট, নেটওয়ার্ক ডায়াগ্রাম, সার্কিট ডায়াগ্রাম এবং আরও অনেক ফর্মেট সাপোর্ট করে
  • আঁকতে সহায়তা করার জন্য বিশেষ অবজেক্টস রয়েছে
  • কাস্টম এক্সএমএল ফর্ম্যাটে ডায়াগ্রামগুলি লোড করে এবং সংরক্ষণ করে যা ডিফল্টরূপে স্থান বাঁচাতে সহায়তা করে
  • পাইথন প্রোগ্রামিং ভাষা ব্যবহার করে স্ক্রিপ্টও করা যায়
  • একাধিক পৃষ্ঠায় ছড়িয়ে থাকা চিত্র/ডায়াগ্রামগুলোকে প্রিন্ট/মুদ্রন করতে পারে

অন্যান্য তথ্য:

  • সাল:২০২০
  • সংস্করণ: ০.৯৭.২
  • সিস্টেম: উইন্ডোজ এক্সপি / ভিস্তা /৭ /৮ /৮.১ /১০
  • ধরন: জিপ
  • আকার: ২২ এমবি
  • পাসওয়ার্ড: portablesoftwarebd.com